Friday, 14 April 2017

Post #0২৭ ইন্দ্রজালের প্রত্যাবর্তন...শুভারম্ভ #০১



কথামতো আজকের 
পর্বে শেষ বেতাল অনুপস্থিত।


আজ পয়লা বৈশাখ। 


খন্ড ০২ সংখ্যা ১৮ এর ইংরাজী প্রচ্ছদ
এই নববর্ষ নবরূপে রাঙিয়ে দিক প্রতিটি মুহুর্ত সুন্দর ও সমৃদ্ধ হোক সকলের আগামী দিনগুলি...সকলকে শুভ নববর্ষের শুভেচ্ছা ও আন্তরিক অভিনন্দন জানাই...

গতবছর এই দিনেই শুরু হয়েছিল চিত্রচোরের পথচলা।সেই হিসেবে আজকের দিনেই চিত্রচোর প্রথম বর্ষে পা দিল। গত একবছরে আপনাদের মতো অনেক গুনমুগ্ধ অনুরাগীরাই চিত্রচোরের বড় প্রাপ্তি ও এটাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মূল কারণ। আমি আশাকরি আগের অনুবাদগুলি আপনাদের ভালো লেগেছে। এবছর কাজের চাপে কতোটা ব্লগে ফিরতে পারবো জানা নেই। গতবছর আমি একা কাজ করেছিলাম, এবার আমাদের চিত্রচোর পরিবার আস্তে আস্তে বড়ো হচ্ছে। শুভাগত দা,পার্থ অরন্যদেব,কুন্তল দা, সাওন, আশিকুর ভাই, সুদীপ দা এবং আরও অনেকে আমার অনুরোধে সাড়া দিয়েছেন। আমার অনুপস্থিতিতে তারাই হয়ে উঠবেন চিত্রচোরের নতুন পথের দিশারী...


শুরুর আগেঃ- গতবারের পোষ্ট পড়ে থাকলে আশাকরি আপনার মনে থাকার কথা যে এবারে একটা বেশ বড়ো প্রজেক্ট নিয়ে আলোচনা করার কথা ছিল।সেইমত এই অধম হাজির হয়েছে সেই স্বপ্নের প্রজেক্ট নিয়ে। যার নাম হচ্ছে ইন্দ্রজালের প্রত্যাবর্তন। চলুন তবে শুরু করা যাক। 


ইন্দ্রজাল কমিক্স সম্পর্কে দু-চার কথাঃ-আমার আগে এতো জ্ঞানী-গুনী মানুষজন এই বিষয় নিয়ে লিখেছেন তার ইয়ত্তা নেই,ইন্দ্রজাল কমিক্স নিয়েও ব্লগের সংখ্যাও নেহাতই কম নয়।তাই এনিয়ে নতুন কিছু বলার মতো আমার কাছে বেশি কিছু থাকারও কথা নয়,তবুও চেষ্টা করছি সংক্ষেপে কিছু জ্ঞাতব্য বিষয় সম্পর্কে বলার।
খন্ড ০২ সংখ্যা ১৮ বাংলা অনুবাদ রূপান্তর

টাইমস অফ ইন্ডিয়া থেকে প্রকাশিত ভারতের সর্বাধিক জনপ্রিয় ও সর্বাধিক বিক্রিত কমিকসের নাম ইন্দ্রজাল কমিকস। ইন্দ্রজাল কমিকস শুরু হয় ১৯৬৪ সালের মার্চ মাসে,ইংরাজিতে শুরু হয় ফ্যান্টম দিয়েই ১৯৬৬ র জানুয়ারি থেকে প্রথম বাংলায় বেতালের আত্মপ্রকাশ।তাই ৬৪-৬৬ পর্যন্ত প্রকাশিত ২২ টি ইন্দ্রজালের কখনো বাংলায় অফিশিয়ালি প্রকাশিত হয়নি।আমাদের মূল প্রয়াস হবে এই ২২ টি সংখ্যাকে আবার বাংলায় ফিরিয়ে আনা।কিছু কাজ আগেই হয়েছে ফ্যান-ট্রান্সলেশান হিসাবে,আর যেগুলো বাকি আছে সেগুলি আমরা কয়েকজন ব্লগার ও ইন্দ্রজাল ফ্যান ঠিক করেছি বাকিগুলো শেষ করবো সবাই মিলে (যারা আমার ফেসবুক প্রোফাইল এ আছেন তারা অনেক হয়তো জানবেন )।


১৯৬৪-১৯৯০ পর্যন্ত প্রকাশিত ইন্দ্রজাল কমিকসের  প্রকাশকালীন ধরনের একটি তালিকা


বিঃদ্রঃ উপরের তালিকায় প্রতি বছর অনুসারে একেকটি ভলিয়ুম ধরা হয়েছে। ভলিয়ুম বা খন্ড
নামকরন শুরু হয় ১৯৮৩ সাল থেকে ২০ খন্ড নামে ও শেষ হয় ২৭ খন্ডে।


তাহলে উপরের লিস্ট থেকে আমাদের কাজ হবে প্রথম দুটি ভলিয়ুম কে বাংলায় ফিরিয়ে আনা।এখানে আরেকটি ব্যাপার বলে নিতে চাই এই ২২ টি সংখ্যার অনেকগুলোই পরে পুনর্মুদ্রিত হয়,তাহলেও বেশীরভাগ ক্ষেত্রে অনেক প্যানেল বাদ দেওয়া হয়েছিল। আমাদের সমস্ত অনুবাদে আসল গল্প ছাড়াও ওর সাথের অতিরিক্ত পার্শ্ব গল্প, জ্ঞান-বিজ্ঞান,ভ্রমণকাহিনী ও অতিরিক্ত বিজ্ঞাপনের পৃষ্ঠাগুলোও যথাসম্ভব অনুবাদের মাধ্যমে একেকটি সম্পূর্ণ সংখ্যা উপহার হিসেবে আপনাদের হাতে তুলে দেওয়াই হবে এই প্রজেক্ট এর মূল উদ্দেশ্য ।


ইন্দ্রজালের ফ্যান ট্রান্সলেশানের  সংক্ষিপ্ত ইতিহাসঃ-


০১। এই কাজের আমাদের পথ প্রদর্শক শ্রদ্ধেয় রঞ্জন দত্ত মহাশয়,  ২০১০ সালে ওনার করা প্রথম ইন্দ্রজাল অনুবাদ থেকেই ইন্দ্রজাল অনুবাদ করার এই প্রচলন শুরু হয়। সংখ্যা ছিল ভলিয়ুম ২ এর ২২ নং সংখ্যা "এ স্ট্রিং অফ ব্ল্যাক পার্লস্‌ " বা রঞ্জনদার অনুবাদে "কালো মুক্তার কন্ঠহার"। এটি প্রথম প্রকাশ হয়েছিল ওনার ব্লগ "বাংলা ইন্দ্রজাল কমিক্স"এ।

ব্লগ লিঙ্কঃ- http://indrajalbengali.blogspot.in/


০২। এরপর ২০১৪ সালে অধ্যাপক সাগ্নিক প্রসাদ ঘোষ মহাশয় যিনি আন্তর্জালে হোজো নামেও পরিচিত। উনিও  ইন্দ্রজালের প্রকাশিত সর্বপ্রথম সংখ্যা "দ্য ফ্যন্টম্স‌ বেল্ট" বাংলায় অনুবাদ করেন "বেতালের বেল্ট" নাম দিয়ে। এটি প্রথম প্রকাশ হয়েছিল ওনার ব্লগ "দ্য লস্ট ওয়ার্ল্ড" এ।

০৩। এরপর ২০১৪ তেই সেই সময় শ্রদ্ধেয় শুভাগত বন্দ্যোপাধ্যায় দা ভলিয়ুম ২ এর ১৮ নং সংখ্যার অনুবাদের কাজ শুরু করলেও অসমাপ্ত সেই কাজ শেষ করেন ২০১৬ সালে। ফেসবুকে প্রকাশিত হয় "দ্য গোল্ডেন প্রিন্সেস" এর বঙ্গানুবাদ  "সোনালী রাজকুমারী"।

ফেসবুক প্রোফাইল  লিঙ্কঃ- https://www.facebook.com/subhagata.bandyopadhyay

০৪। এরপর এবছরে ২০১৭ সালের জানুয়ারী মাসে বন্ধুবর শ্রীমান পার্থ মুখার্জী মহাশয় যিনি পার্থ অরন্যদেব মুখার্জী নামেও ফেসবুকে পরিচিত, তার সৌজন্যে ভলিয়ুম ২ এর ১৪ নং সংখ্যা "দ্য মিস্ট্রী অফ দ্য র‍্যাটেল" এর বঙ্গানুবাদ  "রহস্যময় ঝুমঝুমি" প্রকাশিত হয় তারই "কমিকওনুবাদ" ফেসবুক পেজে।

ফেসবুক পেজ  লিঙ্কঃ- https://www.facebook.com/onubadokerasor/?hc_ref=SEARCH

০৫।   শুভাগত বন্দ্যোপাধ্যায় দার দ্বিতীয় ইন্দ্রজাল অনুবাদ ভলিয়ুম ১ এর ০৭ নং সংখ্যা "দ্য ম্যান এটিং প্ল্যান্ট" এর বঙ্গানুবাদ  "নরখাদক গাছ" সদ্য ধারাবাহিকভাবে ফেসবুকে প্রকাশিত হচ্ছে।

০৬। এরপর আবার পার্থ অরন্যদেব মুখার্জীর দ্বিতীয় ইন্দ্রজাল অনুবাদ ভলিয়ুম ২ এর ১৬ নং সংখ্যা "দ্য ডায়মন্ড কাপ" এর বঙ্গানুবাদ  "হীরের পেয়ালা" সদ্য প্রকাশিত হয়েছে।

এছাড়াও কুন্তলদা, সুদীপ দেব দা, মৈনাক নাথ দা, সৌমেন চ্যাটার্জী দা,রঞ্জন গঙ্গোপাধ্যায় দা, দেবজ্যোতি বাবু,সাওন দত্ত প্রমুখ আগে নানান রকম কমিক্স ও গল্প অনুবাদ করেছেন বলে ওনাদেরও অনুরোধ জানানো হয়েছে...


 

বিঃদ্রঃ এই তালিকাতে অন্তর্ভুক্ত সমস্ত বাংলা শিরোনামগুলি প্রয়োজনে পরিবর্তন হতে পারে।

এই তালিকাটি প্রস্তুত করার সময় বাংলা নামগুলির যথাযথ নামকরণ প্রসঙ্গে সর্বত ভাবে সাহায্য করেছেন মিস্টার ওয়াকার বা স্বাগত দত্ত বর্মণ, পার্থ অরন্যদেব মুখার্জী শুভাগত বন্দ্যোপাধ্যায় দাদা।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে ইন্দ্রনাথ ব্যনার্জী দাদার এই ক্ষেত্রে  বিশেষ মতামত আমাদের চলার পথে পাথেয় হয়েছে।


বিঃদ্রঃ উপরের তালিকা এবং এই লেখায় প্রদত্ত তথ্যাবলির বিভিন্ন অংশ বাংলার নানান ইন্দ্রজাল বিষয়ক ব্লগের থেকে তথ্য নিয়ে সম্পূর্ণ করা হয়েছে। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য  বাংলা ইন্দ্রজাল কমিক্স, দ্য লস্ট ওয়ার্ল্ড , ওয়াকার ইন্দ্রজাল  ও বেঙ্গলি ইন্দ্রজাল কমিক্স ফরেভার ব্লগগুলি।



আজ পড়বেন ইন্দ্রজাল কমিকসের খন্ড ২ সংখ্যা ১৮ " সোনালী রাজকুমারী "  
শুধু মাত্র চিত্রচোর ব্লগে-


বিঃদ্রঃ এই কমিকস্‌টি সব বয়সের পাঠকদের পড়ার উপযোগী।তাই নির্দ্বিধায় পড়ুন ও পড়া ন। আর অনুবাদ কেমন হচ্ছে জানাতে ভুলবেন না যেন।








পরবর্তী পোষ্টে আমরা শেষ বেতাল এর 

ফেরার আশায় থাকবো...


তারপর এক এক করে আবার শুরু হবে ইন্দ্রজালের প্রত্যাবর্তন... 






Saturday, 21 January 2017

Post #0২৬ বেতাল আছেন চিত্রচোরে...শেষ বেতাল #১২

বেতাল আছেন, এখনো ?? ...

অ্যালেক্স রসের করা  #১২ ইস্যুর প্রচ্ছদ
বাইকে ইংরাজি নতুন বছরে Happy New Year জানিয়ে আজকের পোষ্টটা শুরু করছি।যদিও জানি আমি এটা পোষ্ট করতে অনেকটাই দেরি করে ফেলেছি।তবুও আজকের পোষ্ট এই বছরের প্রথম পোষ্ট তাই ভাবলাম,Happy New Year জানানোটা জরুরী।হ্যাঁ আবারও হয়তো নিরাশ করতে চলেছি এই ব্লগের কিছু পাঠকদের।এখনো একই জিনিষ নিয়েই বিরক্ত করবো সেটা হচ্ছে শেষ বেতাল

শেষ বেতাল চিত্রচোরে প্রথম শুরু হয় দেবীপক্ষের আগমনের সময় অর্থাৎ মহালয়ার দিন, ২৯ শে সেপ্টেম্বর,২০১৬ থেকে। সেটা এখনো চলছে।আমি নিজে ভেবেছিলাম যে এটা দীপাবলির মধ্যে শেষ করবো।অর্থাৎ অক্টোবরের শেষ দিকে, এই পরিকল্টাপনাটা যে কোনও ভাবেই শেষ করা সম্ভব হয়নি সেটা এই ব্লগের পাঠকদের অজানা নয়।বরং বড়দিনে শেষ করার পরিকল্পনাতেও আমি পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছি।শেষ বেতাল যেন এক দুঃস্বপ্নের মতো আমাকে তাড়া করে বেড়াচ্ছে,আর সেই দুঃস্বপ্নের সমাপ্তি এখনো ঘটেনি। এর যথেষ্ট কারনও ছিল, কারন শেষ বেতাল হচ্ছে চিত্রচোরের অনুদিত সর্ববৃহৎ অনুবাদ।এটা সম্পূর্ণ রূপে তিনশোর কিছু বেশি পাতার এক সম্পূর্ণ গ্রাফিক উপন্যাস।"দ্য লাস্ট ফ্যান্টমে তিন বছর ২০১০-২০১২ ধরে ১৩টি খন্ডে সম্পূর্ণরূপে প্রকাশ পায়,ডায়নামাইট এন্টারটেনমেন্ট পাব্লিকেশান এর তরফ থেকে।সেটা এতোটা তাড়াতাড়ি একার পক্ষে অনুবাদ করাও কিন্ত খুব সহজ কাজ নয় বলেই মনে করি।সে যাই হোক,শুরু যখন করেছি তখন আমাকে শেষ তো করতেই হবে,আর সেটা শেষ করা আমার কর্তব্য

#১২ সংখ্যার বাংলা সংস্করণের প্রচ্ছদ
** প্রসঙ্গত একটা কথা জানিয়ে রাখা জরুরি যে আমার মনে হয় না,কোনও কমিকস ধারাবাহিকভাবে এতোটা দীর্ঘ চললে সবার সেইদিকে সমান মনোযোগ থাকে,বেশিরভাগ পাঠক সম্পূর্ণ গল্প চান (তার মধ্যে আমি নিজেকেও রাখি)। কে অপেক্ষা করবে ধারাবাহিকভাবে কমিকস পড়ার জন্য, যেখানে সমাপ্তি কবে হবে তার আগাম কোনও নিশ্চয়তা নেই।এর প্রভাব কমেন্টেও পড়তে বাধ্য,এটা আমার একটা ক্ষোভ বলতে পারেন,বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় কমেন্ট বক্স এ কমেন্ট এর সংখ্যা ২-৩ কি কখনোবা তাও নেই।এটা শুধু আমার ব্লগের ক্ষেত্রে বলছি না, এই বাংলায় যতগুলো ব্লগ আপনি দেখবেন,সব একই হাল,অথচ ডাউনলোডের হার কিন্ত বেড়ে চলে।অনেকে এটা বুঝতে পারেন না যে আপনাদের এই সামান্যতম বিনোদনের জন্য ব্লগারকে কতোটা পরিমান পরিশ্রম করতে হচ্ছে,তিনি করছেন কেন ? বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই অর্থের জন্য নয়,করছেন নিজের ভালোবাসার থেকে।হে সচেতন পাঠককুল একটু সজাগ হোন।অধিকাংশ পাঠকদের কখনো কি এটা মনে হয়না যে কি চলছে কেমন চলছে তা ব্লগারকে জানানো দরকার,উনি কি ভুল করছেন বা ঠিক করছেন সেটা পাঠকদের মুখ থেকেই যদি না জানতে পারেন,তবে তিনি সঠিকটা করবেন কি করে? হ্যাঁ অনেকের মনে হতে পারে অনেক জ্ঞান দিয়ে ফেলেছি,আবার অনেকে হয়তো মনে করতে পারেন ভিক্ষা চাইছে।হা হা যদি সেটা মনে হয় তবেও আমার কিছু করার নেই। যাইহোক আজ অনেক হল জ্ঞান দান। এবার কাজের কথা শুরু করি...



তার আগে দেখে নেই এই সংখ্যার দুটি অতিরিক্ত ভ্যরিয়েন্ট কভারঃ-


স্টিফেন শ্যাডোস্কীর করা # ১২ ইস্যুর প্রচ্ছদ
জোনাথন লাউয়ের করা #১২ ইস্যুর প্রচ্ছদ


আপনারা তো জানেন,তবুও আরেকবার মনে করিয়ে দিই, এই সিরিজে মোট ১২ টি ইস্যু আছে।আর আছে একটি বার্ষিক ইস্যু।প্রতিটি ইস্যু একেকটি অধ্যায়ে বিভক্ত করা আছে। গল্পটা এতোটা চমকপ্রদ ও রোমহর্ষক যে চিত্রচোরের প্রথা ভঙ্গ করে একেকটি কমিক্সের ধারাবাহিক পর্বে ভাগ না করে অখন্ড একেকটি ইস্যু শেয়ার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। অর্থাৎ আপনারা প্রতি পোস্টে একটা সম্পূর্ণ অধ্যায় পড়েছেন।

আপনারা শেষ বেতালঃপ্রথম খন্ড "ভৌতিক পদভ্রমণ" পড়েছিলেন।যেটা ইস্যু ০১-০৬ পর্যন্ত সমাপ্ত
তারপর   শেষ বেতালঃ দ্বিতীয় খন্ড "অরণ্যের আইন" যেটা - ০৭-১২ তে সমাপ্ত।


আপনারা শেষ পড়েছিলেন একাদশ সংখ্যা আর আজ পড়বেন শেষ বেতালের দ্বাদশ সংখ্যা  
শুধু মাত্র চিত্রচোর ব্লগে-


বিদ্রঃ এটি একটি টিন কমিকস। অর্থাৎ,টিনেজারদের বা তার চেয়ে বেশী বয়সের পাঠকদের কথা মাথায় রেখে বানানো হয়েছে।এটি অ্যাডভেঞ্চার, ক্রাইম থ্রিলার গল্প।এতে কিছুক্ষেত্রে তীব্র নৃশংসতা দেখানো হয়েছে,ও কিছুক্ষেত্রে কিছু স্বল্পবসনা চরিত্রের ক্ষেত্রে অনেকের আপত্তি আসতে পারে ।তাই বাচ্চাদের অভিভাবকের উপস্থিতিতেই পড়ানো উচিত। আর অনুবাদ কেমন হচ্ছে জানাতে ভুলবেন না যেন।








এরপর বাকি শুধু শেষ বেতালের শেষ বার্ষিক সংখ্যা।সেটা কবে সমাপ্ত হবে জানা নেই,আর আগের থেকে নির্দিষ্টভাবে বলাও এখন সম্ভব হচ্ছে না।


আগামী পর্বে
 তার আগে আশা করছি প্রথা ভেঙ্গে আরেকটি পোষ্ট করা হবে।সেটিও বেশ বড়ো প্রজেক্ট।স্বপ্নের প্রজেক্ট বলতে পারেন। সেটার নাম হচ্ছে ইন্দ্রজালের প্রত্যাবর্তন।টাইমস অফ ইন্ডিয়া থেকে প্রকাশিত ভারতের সর্বাধিক জনপ্রিয় ও সর্বাধিক বিক্রিত থেকে যে ইন্দ্রজাল কমিকস সেটা নিয়ে।ইন্দ্রজাল কমিকস শুরু হয় ১৯৬৪ সালের মার্চ মাসে,ইংরাজিতে শুরু হয় ফ্যান্টম দিয়েই ১৯৬৬ র জানুয়ারি থেকে প্রথম বাংলায় বেতালের আত্মপ্রকাশ।তাই ৬৪-৬৬ পর্যন্ত প্রকাশিত ২২ টি ইন্দ্রজালের কখনো বাংলায় অফিশিয়ালি প্রকাশিত হয়নি।আমাদের মূল প্রয়াস হবে এই ২২ টি সংখ্যাকে আবার বাংলায় ফিরিয়ে আনা।কিছু কাজ আগেই হয়েছে ফ্যান-ট্রান্সলেশান হিসাবে,আর যেগুলো বাকি আছে সেগুলি আমরা কয়েকজন ব্লগার ও ইন্দ্রজাল ফ্যান মিলে ঠিক করেছি বাকিগুলো আমরা শেষ করবো সবাই মিলে (যারা আমার ফেসবুক প্রোফাইল এ আছেন তারা অনেক হয়তো জানবেন)।

সেই নিয়েই আলোচনা থাকবে আগামী পোষ্টে। 


Tuesday, 20 December 2016

Post #0২৫ বেতাল আছেন চিত্রচোরে...শেষ বেতাল # ১১

বেতাল আছেন...

অ্যালেক্স রসের করা # ১১ ইস্যুর প্রচ্ছদ
গতবার আপনারা শেষ বেতালের প্রথম খন্ড "ভৌতিক পদভ্রমণ" পড়েছিলেন।সপ্তম পর্বেই শুরু হয়েছিল শেষ বেতাল দ্বিতীয় খন্ড "অরণ্যের আইন"

এটিও ছয়টি সংখ্যায় বিভক্ত।আজ পড়বেন একাদশ সংখ্যা



অফিসের কাজের চাপ থাকার কারনে এতো বিলম্ব হয়ে গেল।আজ দশম সংখ্যা ছাড়তে পেরে বেশ স্বস্তি পেলাম, তবে যতক্ষণ না শেষ বেতাল শেষ হচ্ছে ততক্ষন নিশ্চিন্ত হতে পারছি না।যাইহোক পড়তে থাকুন।

বেতালের অভাব পুরণ করতে আমরা নিয়ে এসেছি ডায়নামাইট এন্টারটেনমেন্টের তরফ থেকে ২০১০ -২০১২ সালে "দ্য লাস্ট ফ্যান্টমের" বঙ্গানুবাদ "শেষ বেতাল"। বেতাল নামকরণ করার কারন আমার ব্যাক্তিগত মতে অরন্যদেবের তুলনায় বেতাল নামটাই বরং বেশী রোমহর্ষক লাগে,তাছাড়া ইন্দ্রজাল কমিকস আমার অবসেশান বলতে পারেন (এটা পড়া ও সংগ্রহ করা আমার অন্যতম পছন্দের বিষয়), সেইজন্য সেই নস্টালজিয়া ফিরিয়ে আনতে ইন্দ্রজালের প্রতি শ্রদ্ধা অবিচল রেখে চিত্রচোরের বিন্ম্র নিবেদনঃ শেষ বেতাল।

# ১১ ইস্যুর মূল প্রচ্ছদের বাংলা সংস্করণ






এই সিরিজে মোট ১২ টি ইস্যু আছে।আর আছে একটি বার্ষিক ইস্যু।প্রতিটি ইস্যু একেকটি অধ্যায়ে বিভক্ত করা আছে। গল্পটা এতোটা চমকপ্রদ ও রোমহর্ষক যে চিত্রচোরের প্রথা ভঙ্গ করে একেকটি কমিক্সের ধারাবাহিক পর্বে ভাগ না করে অখন্ড একেকটি ইস্যু শেয়ার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ আপনারা প্রতি পোস্টে একটা সম্পূর্ণ অধ্যায় পড়তে পারবেন।




গত পর্বে আপনারা পড়েছিলেন শেষ বেতালের দশম অধ্যায়।


**সপ্তম অধ্যায়ে শুরু হচ্ছে শেষ বেতালের দ্বিতীয় খন্ড।



এবার দেখে নেই এই সংখ্যার দুটি অতিরিক্ত ভ্যরিয়েন্ট কভারঃ-


স্টিফেন শ্যাডোস্কীর করা # ১১ ইস্যুর প্রচ্ছদ

জোনাথন লাউয়ের করা #১১ ইস্যুর প্রচ্ছদ




 


















আজ পড়ুন শেষ বেতাল এর একাদশ পর্ব শুধু মাত্র চিত্রচোর ব্লগে-


বিদ্রঃ এটি একটি টিন কমিকস। অর্থাৎ,টিনেজারদের বা তার চেয়ে বেশী বয়সের পাঠকদের কথা মাথায় রেখে বানানো হয়েছে।এটি অ্যাডভেঞ্চার, ক্রাইম থ্রিলার গল্প।এতে কিছুক্ষেত্রে তীব্র নৃশংসতা দেখানো হয়েছে,ও কিছুক্ষেত্রে কিছু স্বল্পবসনা চরিত্রের ক্ষেত্রে অনেকের আপত্তি আসতে পারে ।তাই বাচ্চাদের অভিভাবকের উপস্থিতিতেই পড়ানো উচিত। আর অনুবাদ কেমন হচ্ছে জানাতে ভুলবেন না যেন।




ডাউনলোড করুন



আগামী পর্বে শেষ বেতাল এর দ্বাদশ পর্ব পড়তে চোখ রাখুন শুধুমাত্র চিত্রচোর ব্লগে...


Tuesday, 13 December 2016

Post #0২৪ বেতাল আছেন চিত্রচোরে...শেষ বেতাল # ১০

বেতাল আছেন...

অ্যালেক্স রসের করা # ১০ ইস্যুর প্রচ্ছদ
গতবার আপনারা শেষ বেতালের প্রথম খন্ড "ভৌতিক পদভ্রমণ" পড়েছিলেন।সপ্তম পর্বেই শুরু হয়েছিল শেষ বেতাল দ্বিতীয় খন্ড "অরণ্যের আইন"

এটিও ছয়টি সংখ্যায় বিভক্ত।আজ পড়বেন দশম সংখ্যা। কলকাতায় ছুটি নিয়ে বাড়ি ফিরে ছিলাম তাছাড়াও অফিসের কাজের চাপ থাকার কারনে এতো বিলম্ব হয়ে গেল।আজ দশম সংখ্যা ছাড়তে পেরে বেশ স্বস্তি পেলাম, তবে যতক্ষণ না শেষ বেতাল শেষ হচ্ছে ততক্ষন নিশ্চিন্ত হতে পারছি না।যাইহোক পড়তে থাকুন।

বেতালের অভাব পুরণ করতে আমরা নিয়ে এসেছি ডায়নামাইট এন্টারটেনমেন্টের তরফ থেকে ২০১০ -২০১২ সালে "দ্য লাস্ট ফ্যান্টমের" বঙ্গানুবাদ "শেষ বেতাল"। বেতাল নামকরণ করার কারন আমার ব্যাক্তিগত মতে অরন্যদেবের তুলনায় বেতাল নামটাই বরং বেশী রোমহর্ষক লাগে,তাছাড়া ইন্দ্রজাল কমিকস আমার অবসেশান বলতে পারেন (এটা পড়া ও সংগ্রহ করা আমার অন্যতম পছন্দের বিষয়), সেইজন্য সেই নস্টালজিয়া ফিরিয়ে আনতে ইন্দ্রজালের প্রতি শ্রদ্ধা অবিচল রেখে চিত্রচোরের বিন্ম্র নিবেদনঃ শেষ বেতাল।

# ১০ ইস্যুর মূল প্রচ্ছদের বাংলা সংস্করণ
শেষ বেতালের গল্প লিখেছেন স্কট বেটী। ছবি এঁকেছেন এডুয়ারর্ডো ফেরিগাটো ও রঙে রাঙিয়েছেন ভিনিসিয়াস আন্দ্রাদে। আর প্রত্যেকটি ইস্যুর মূল প্রচ্ছদ করেছেন বিশ্ববরেণ্য কমিকস শিল্পী অ্যালেক্স রস



** এই ইস্যুর প্রচ্ছদে অ্যালেক্স রস মহাশয় অত্যন্ত দক্ষতার সাথে বর্তমান বেতাল ও তার পূর্বপুরুষ দের ছবি বেশ সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন।এটি এই সিরিজের আমার সবচেয়ে পছন্দের প্রচ্ছদের মধ্যে একটি।


এই সিরিজে মোট ১২ টি ইস্যু আছে।আর আছে একটি বার্ষিক ইস্যু।প্রতিটি ইস্যু একেকটি অধ্যায়ে বিভক্ত করা আছে। গল্পটা এতোটা চমকপ্রদ ও রোমহর্ষক যে চিত্রচোরের প্রথা ভঙ্গ করে একেকটি কমিক্সের ধারাবাহিক পর্বে ভাগ না করে অখন্ড একেকটি ইস্যু শেয়ার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ আপনারা প্রতি পোস্টে একটা সম্পূর্ণ অধ্যায় পড়তে পারবেন।




গত পর্বে আপনারা পড়েছিলেন শেষ বেতালের নবম অধ্যায়।


**সপ্তম অধ্যায়ে শুরু হচ্ছে শেষ বেতালের দ্বিতীয় খন্ড।

এবার দেখে নেই এই সংখ্যার দুটি অতিরিক্ত ভ্যরিয়েন্ট কভারঃ-


স্টিফেন শ্যাডোস্কীর করা # ১০ ইস্যুর প্রচ্ছদ

ফ্যাবিনো নেভেসের করা # ১০ ইস্যুর প্রচ্ছদ

                               




















 আজ পড়ুন শেষ বেতাল এর দশম পর্ব শুধু মাত্র চিত্রচোর ব্লগে-

বিদ্রঃ এটি একটি টিন কমিকস। অর্থাৎ,টিনেজারদের বা তার চেয়ে বেশী বয়সের পাঠকদের কথা মাথায় রেখে বানানো হয়েছে।এটি অ্যাডভেঞ্চার, ক্রাইম থ্রিলার গল্প।এতে কিছুক্ষেত্রে তীব্র নৃশংসতা দেখানো হয়েছে,ও কিছুক্ষেত্রে কিছু স্বল্পবসনা চরিত্রের ক্ষেত্রে অনেকের আপত্তি আসতে পারে ।তাই বাচ্চাদের অভিভাবকের উপস্থিতিতেই পড়ানো উচিত। আর অনুবাদ কেমন হচ্ছে জানাতে ভুলবেন না যেন।




ডাউনলোড করুন



আগামী পর্বে শেষ বেতাল এর একাদশ পর্ব পড়তে চোখ রাখুন শুধুমাত্র চিত্রচোর ব্লগে...


Tuesday, 29 November 2016

Post #0২৩ বেতাল আছেন চিত্রচোরে...শেষ বেতাল # ০৯

বেতাল আছেন...

অ্যালেক্স রসের করা # ০৯ ইস্যুর মূল প্রচ্ছদ
গতবার আপনারা শেষ বেতালের প্রথম খন্ড "ভৌতিক পদভ্রমণ" পড়েছিলেন।সপ্তম পর্বেই শুরু হয়েছিল শেষ বেতাল দ্বিতীয় খন্ড "অরণ্যের আইন"

এটিও ছয়টি সংখ্যায় বিভক্ত।আজ পড়বেন নবম সংখ্যা। কলকাতায় ছুটি নিয়ে বাড়ি ফিরে ছিলাম তাছাড়াও অফিসের কাজের চাপ থাকার কারনে এতো বিলম্ব হয়ে গেল।আজ অষ্টম সংখ্যা ছাড়তে পেরে বেশ স্বস্তি পেলাম, তবে যতক্ষণ না শেষ বেতাল শেষ হচ্ছে ততক্ষন নিশ্চিন্ত হতে পারছি না।যাইহোক পড়তে থাকুন।

বেতালের অভাব পুরণ করতে আমরা নিয়ে এসেছি ডায়নামাইট এন্টারটেনমেন্টের তরফ থেকে ২০১০ -২০১২ সালে "দ্য লাস্ট ফ্যান্টমের" বঙ্গানুবাদ "শেষ বেতাল"। বেতাল নামকরণ করার কারন আমার ব্যাক্তিগত মতে অরন্যদেবের তুলনায় বেতাল নামটাই বরং বেশী রোমহর্ষক লাগে,তাছাড়া ইন্দ্রজাল কমিকস আমার অবসেশান বলতে পারেন (এটা পড়া ও সংগ্রহ করা আমার অন্যতম পছন্দের বিষয়), সেইজন্য সেই নস্টালজিয়া ফিরিয়ে আনতে ইন্দ্রজালের প্রতি শ্রদ্ধা অবিচল রেখে চিত্রচোরের বিন্ম্র নিবেদনঃ শেষ বেতাল।

# ০৯ ইস্যুর মূল প্রচ্ছদের বাংলা সংস্করণ
শেষ বেতালের গল্প লিখেছেন স্কট বেটী। ছবি এঁকেছেন এডুয়ারর্ডো ফেরিগাটো ও রঙে রাঙিয়েছেন ভিনিসিয়াস আন্দ্রাদে। আর প্রত্যেকটি ইস্যুর মূল প্রচ্ছদ করেছেন বিশ্ববরেণ্য কমিকস শিল্পী অ্যালেক্স রস






এই সিরিজে মোট ১২ টি ইস্যু আছে।আর আছে একটি বার্ষিক ইস্যু।প্রতিটি ইস্যু একেকটি অধ্যায়ে বিভক্ত করা আছে। গল্পটা এতোটা চমকপ্রদ ও রোমহর্ষক যে চিত্রচোরের প্রথা ভঙ্গ করে একেকটি কমিক্সের ধারাবাহিক পর্বে ভাগ না করে অখন্ড একেকটি ইস্যু শেয়ার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ আপনারা প্রতি পোস্টে একটা সম্পূর্ণ অধ্যায় পড়তে পারবেন।




গত পর্বে আপনারা পড়েছিলেন শেষ বেতালের অষ্টম অধ্যায়।


**সপ্তম অধ্যায়ে শুরু হচ্ছে শেষ বেতালের দ্বিতীয় খন্ড।

এবার দেখে নেই এই সংখ্যার দুটি অতিরিক্ত ভ্যরিয়েন্ট কভারঃ-


স্টিফেন শ্যাডোস্কীর করা #০৯ ইস্যুর প্রচ্ছদ

ফ্যাবিনো নেভিসের করা #০৯ ইস্যুর প্রচ্ছদ


                                আজ পড়ুন শেষ বেতাল এর নবম পর্ব শুধু মাত্র চিত্রচোর ব্লগে-

বিদ্রঃ এটি একটি টিন কমিকস। অর্থাৎ,টিনেজারদের বা তার চেয়ে বেশী বয়সের পাঠকদের কথা মাথায় রেখে বানানো হয়েছে।এটি অ্যাডভেঞ্চার, ক্রাইম থ্রিলার গল্প।এতে কিছুক্ষেত্রে তীব্র নৃশংসতা দেখানো হয়েছে,ও কিছুক্ষেত্রে কিছু স্বল্পবসনা চরিত্রের ক্ষেত্রে অনেকের আপত্তি আসতে পারে ।তাই বাচ্চাদের অভিভাবকের উপস্থিতিতেই পড়ানো উচিত। আর অনুবাদ কেমন হচ্ছে জানাতে ভুলবেন না যেন।




ডাউনলোড করুন



আগামী পর্বে শেষ বেতাল এর দশম পর্ব পড়তে চোখ রাখুন শুধুমাত্র চিত্রচোর ব্লগে...

Thursday, 24 November 2016

Post #0২২ বেতাল আছেন চিত্রচোরে...শেষ বেতাল # ০৮

বেতাল আছেন...

অ্যালেক্স রসের করা #০৮ ইস্যুর মূল প্রচ্ছদ
গতবার আপনারা শেষ বেতালের প্রথম খন্ড "ভৌতিক পদভ্রমণ" পড়েছিলেন।আগের পর্বেই শুরু হয়েছিল শেষ বেতাল দ্বিতীয় খন্ড "অরণ্যের আইন"।

এটিও ছয়টি সংখ্যায় বিভক্ত।আজ পড়বেন অষ্টম সংখ্যা। কলকাতায় ছুটি নিয়ে বাড়ি ফিরে ছিলাম তাছাড়াও অফিসের কাজের চাপ থাকার কারনে এতো বিলম্ব হয়ে গেল।আজ অষ্টম সংখ্যা ছাড়তে পেরে বেশ স্বস্তি পেলাম, তবে যতক্ষণ না শেষ বেতাল শেষ হচ্ছে ততক্ষন নিশ্চিন্ত হতে পারছি না।যাইহোক পড়তে থাকুন।

বেতালের অভাব পুরণ করতে আমরা নিয়ে এসেছি ডায়নামাইট এন্টারটেনমেন্টের তরফ থেকে ২০১০ -২০১২ সালে "দ্য লাস্ট ফ্যান্টমের" বঙ্গানুবাদ "শেষ বেতাল"। বেতাল নামকরণ করার কারন আমার ব্যাক্তিগত মতে অরন্যদেবের তুলনায় বেতাল নামটাই বরং বেশী রোমহর্ষক লাগে,তাছাড়া ইন্দ্রজাল কমিকস আমার অবসেশান বলতে পারেন (এটা পড়া ও সংগ্রহ করা আমার অন্যতম পছন্দের বিষয়), সেইজন্য সেই নস্টালজিয়া ফিরিয়ে আনতে ইন্দ্রজালের প্রতি শ্রদ্ধা অবিচল রেখে চিত্রচোরের বিন্ম্র নিবেদনঃ শেষ বেতাল।

#০৮ ইস্যুর মূল প্রচ্ছদের বাংলা সংস্করণ

শেষ বেতালের গল্প লিখেছেন স্কট বেটী। ছবি এঁকেছেন এডুয়ারর্ডো ফেরিগাটো ও রঙে রাঙিয়েছেন ভিনিসিয়াস আন্দ্রাদে। আর প্রত্যেকটি ইস্যুর মূল প্রচ্ছদ করেছেন বিশ্ববরেণ্য কমিকস শিল্পী অ্যালেক্স রস





এই সিরিজে মোট ১২ টি ইস্যু আছে।আর আছে একটি বার্ষিক ইস্যু।প্রতিটি ইস্যু একেকটি অধ্যায়ে বিভক্ত করা আছে। গল্পটা এতোটা চমকপ্রদ ও রোমহর্ষক যে চিত্রচোরের প্রথা ভঙ্গ করে একেকটি কমিক্সের ধারাবাহিক পর্বে ভাগ না করে অখন্ড একেকটি ইস্যু শেয়ার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ আপনারা প্রতি পোস্টে একটা সম্পূর্ণ অধ্যায় পড়তে পারবেন।



গত পর্বে আপনারা পড়েছিলেন শেষ বেতালের সপ্তম অধ্যায়।


**সপ্তম অধ্যায়ে শুরু হচ্ছে শেষ বেতালের দ্বিতীয় খন্ড।

এবার দেখে নেই এই সংখ্যার দুটি অতিরিক্ত ভ্যরিয়েন্ট কভারঃ-


স্টিফেন শ্যাডোস্কীর করা #০৮ ইস্যুর প্রচ্ছদ

ফ্যাবিনো নেভেসের করা #০৮ ইস্যুর প্রচ্ছদ

আজ পড়ুন শেষ বেতাল এর অষ্টম পর্ব শুধু মাত্র চিত্রচোর ব্লগে-

বিদ্রঃ এটি একটি টিন কমিকস। অর্থাৎ,টিনেজারদের বা তার চেয়ে বেশী বয়সের পাঠকদের কথা মাথায় রেখে বানানো হয়েছে।এটি অ্যাডভেঞ্চার, ক্রাইম থ্রিলার গল্প।এতে কিছুক্ষেত্রে তীব্র নৃশংসতা দেখানো হয়েছে,ও কিছুক্ষেত্রে কিছু স্বল্পবসনা চরিত্রের ক্ষেত্রে অনেকের আপত্তি আসতে পারে ।তাই বাচ্চাদের অভিভাবকের উপস্থিতিতেই পড়ানো উচিত। আর অনুবাদ কেমন হচ্ছে জানাতে ভুলবেন না যেন।




ডাউনলোড করুন



আগামী পর্বে শেষ বেতাল এর নবম পর্ব পড়তে চোখ রাখুন শুধুমাত্র চিত্রচোর ব্লগে...

Saturday, 29 October 2016

Post #0২১ বেতাল আছেন চিত্রচোরে...শেষ বেতাল # ০৭

বেতাল আছেন...


সবাইকে শুভ দীপাবলির প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানাই।




অ্যালেক্স রসের করা #০৭ ইস্যুর মূল প্রচ্ছদ
তকাল ছিল ভূত চতুর্দশী...কাল থেকেই শুরু হয়েছে ভুতেদের নৃত্য।কালকেই নতুন পোষ্টের ইচ্ছা ছিল কিন্তু হয়ে ওঠেনি সময়ের অভাবে।সে যাইহোক ৩১ অক্টোবর অনেক দেশেই হ্যালোইন উৎসব পালিত হয়।আর এবার তো শ্যামামায়ের আগমনও একদম সঠিক সময়েই হয়েছে।

এইসময়ে যখন ভুতেদের এতো রমরমা,তখন অপরাধের দমনে বেতাল আসবেন না তা কি হতে পারে ??

গতবার আপনারা শেষ বেতালের প্রথম খন্ড "ভৌতিক পদভ্রমণ" পড়েছিলেন।আজ থেকে শুরু হচ্ছে শেষ বেতাল দ্বিতীয় খন্ড "অরণ্যের আইন"

এটিও ছয়টি সংখ্যায় বিভক্ত।আজ পড়বেন সপ্তম সংখ্যা


বেতালের অভাব পুরণ করতে আমরা নিয়ে এসেছি ডায়নামাইট এন্টারটেনমেন্টের তরফ থেকে ২০১০ -২০১২ সালে "দ্য লাস্ট ফ্যান্টমের" বঙ্গানুবাদ "শেষ বেতাল"। বেতাল নামকরণ করার কারন আমার ব্যাক্তিগত মতে অরন্যদেবের তুলনায় বেতাল নামটাই বরং বেশী রোমহর্ষক লাগে,তাছাড়া ইন্দ্রজাল কমিকস আমার অবসেশান বলতে পারেন (এটা পড়া ও সংগ্রহ করা আমার অন্যতম পছন্দের বিষয়), সেইজন্য সেই নস্টালজিয়া ফিরিয়ে আনতে ইন্দ্রজালের প্রতি শ্রদ্ধা অবিচল রেখে চিত্রচোরের বিন্ম্র নিবেদনঃ শেষ বেতাল।

শেষ বেতালের গল্প লিখেছেন স্কট বেটী। ছবি এঁকেছেন এডুয়ারর্ডো ফেরিগাটো ও রঙে রাঙিয়েছেন ভিনিসিয়াস আন্দ্রাদে। আর প্রত্যেকটি ইস্যুর মূল প্রচ্ছদ করেছেন বিশ্ববরেণ্য কমিকস শিল্পী অ্যালেক্স রস

#০৭ ইস্যুর মূল প্রচ্ছদের বাংলা সংস্করণ





এই সিরিজে মোট ১২ টি ইস্যু আছে।আর আছে একটি বার্ষিক ইস্যু।প্রতিটি ইস্যু একেকটি অধ্যায়ে বিভক্ত করা আছে। গল্পটা এতোটা চমকপ্রদ ও রোমহর্ষক যে চিত্রচোরের প্রথা ভঙ্গ করে একেকটি কমিক্সের ধারাবাহিক পর্বে ভাগ না করে অখন্ড একেকটি ইস্যু শেয়ার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ আপনারা প্রতি পোস্টে একটা সম্পূর্ণ অধ্যায় পড়তে পারবেন।



গত পর্বে আপনারা পড়েছিলেন শেষ বেতালের ষষ্ঠ অধ্যায়।





**এই সপ্তম অধ্যায়ে শুরু হচ্ছে শেষ বেতালের দ্বিতীয় খন্ড।

এবার দেখে নেই এই সংখ্যার দুটি অতিরিক্ত ভ্যরিয়েন্ট কভারঃ-

ফ্যাবিনো নেভেসের করা #০৭ ইস্যুর প্রচ্ছদ
স্টিফেন শ্যাডোস্কীর করা #০৭ ইস্যুর প্রচ্ছদ

আজ পড়ুন শেষ বেতাল এর সপ্তম পর্ব শুধু মাত্র চিত্রচোর ব্লগে-

বিদ্রঃ এটি একটি টিন কমিকস। অর্থাৎ,টিনেজারদের বা তার চেয়ে বেশী বয়সের পাঠকদের কথা মাথায় রেখে বানানো হয়েছে।এটি অ্যাডভেঞ্চার, ক্রাইম থ্রিলার গল্প।এতে কিছুক্ষেত্রে তীব্র নৃশংসতা দেখানো হয়েছে,ও কিছুক্ষেত্রে কিছু স্বল্পবসনা চরিত্রের ক্ষেত্রে অনেকের আপত্তি আসতে পারে ।তাই বাচ্চাদের অভিভাবকের উপস্থিতিতেই পড়ানো উচিত। আর অনুবাদ কেমন হচ্ছে জানাতে ভুলবেন না যেন।




ডাউনলোড করুন



আগামী পর্বে শেষ বেতাল এর অষ্টম পর্ব পড়তে চোখ রা
খুন শুধুমাত্র চিত্রচোর ব্লগে...